ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

শীতে সানস্ক্রিন ব্যবহারের ৬ কারণ

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২০ ৮:৫২:১৮ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২০ ৮:৫৮:৪৬ এএম

ত্বককে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মির প্রভাব থেকে বাঁচানোর জন্য সানস্ক্রিন লাগানো হয়। সাধারণত গরমের দিনে এ স্কিন কেয়ার প্রোডাক্টের ব্যবহার বেড়ে যায়। স্বাস্থ্য সচেতন মানুষেরা গ্রীষ্মে সানবার্ন ও স্কিন ক্যানসারের ঝুঁকি এড়াতে সানস্ক্রিন মেখে থাকেন।

কিন্তু তাদের অনেকেই শীতে সানস্ক্রিন ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করেন না, এর অন্যতম কারণ হতে পারে সূর্যালোকের কম উপস্থিতি। কিন্তু ত্বক বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করছেন যে এ মৌসুমেও সানস্ক্রিন পরা উচিত। এখানে শীতে ত্বকে সানস্ক্রিন প্রয়োগের ছয়টি কারণ আলোচিত হলো।

ইউভি রশ্মি মেঘকে ভেদ করে:

শীতকালীন মেঘ যতই ঘন দেখাক না কেন, তাদেরকে ভেদ করে প্রায় ৮০ শতাংশ পর্যন্ত সূর্যের রশ্মি নিচে আসতে পারে- এর অর্থ হলো, আপনার ত্বকও এ ক্ষতিকর রশ্মির সংস্পর্শে আসছে। নিউ ইয়র্ক সিটিতে অবস্থিত ওয়াশিংটন স্কয়ার ডার্মাটোলজির ত্বক বিশেষজ্ঞ সামের জাবের বলেন, ‘দুই ধরনের ইউভি রশ্মি আমাদেরকে প্রভাবিত করে, যার মধ্যে একটি রশ্মি শীতকালে ত্বকের জন্য খুব বিপজ্জনক। ইউভিএ রশ্মি মেঘ ও কাঁচকে ভেদ করে ত্বকের গভীরে পৌঁছতে পারে। এ রশ্মি ত্বকের গভীর স্তরকে ড্যামেজ করে অকাল বয়স্কতা ও স্কিন ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে। অন্যদিকে ইউভিবি রশ্মির মাত্রা মৌসুমভেদে কম বেশি হয়ে থাকে। গ্রীষ্মের রৌদ্রময় দিনে ইউভিবি রশ্মির মাত্রা বেশি থাকে। এ রশ্মি ত্বকের পৃষ্ঠ বা উপরের স্তরকে ড্যামেজ করে সানবার্ন ও স্কিন ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়ায়। যেহেতু সারাবছরই ত্বক ইউভিএ রশ্মির ঝুঁকিতে থাকে, তাই ত্বকের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে শীতকালেও সানস্ক্রিন ব্যবহার করা উচিত।’

সানস্ক্রিন বয়সের ছাপ প্রতিরোধ করে:

শীতের কড়া আবহাওয়া ত্বকে শুষ্কতার পরিমাণ বাড়িয়ে সৌন্দর্যহানি করে। কিন্তু আপনার জন্য সুখবর হচ্ছে, ত্বকে বয়স্কতার ছাপ প্রতিরোধ করতে পারে এমন ক্ষমতা সানস্ক্রিনে রয়েছে। অনেক গবেষণায় এটা প্রমাণিত হয়েছে যে, নিয়মিত সানস্ক্রিন ব্যবহার করে বয়সের ছাপ এড়ানো যায়। গবেষকরা ৯০০ জন অস্ট্রেলিয়ান নারী ও পুরুষের ওপর ত্বকের বয়স্কতা ও সানস্ক্রিনের ব্যবহার সংক্রান্ত একটি গবেষণা চালান। চার বছর ব্যাপ্তির এ গবেষণায় যারা প্রতিদিন সানস্ক্রিন পরেছেন তাদের ত্বকে উল্লেখ করার মতো বয়সের ছাপ লক্ষ্য করা যায়নি। প্রকৃতপক্ষে তাদের ত্বক আরো উজ্জ্বল হয়েছে। অন্যদিকে সানস্ক্রিনের ব্যবহার থেকে বিরত থাকা গ্রুপে এর বিপরীত চিত্র দেখা গেছে। এ গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের গড় বয়স ছিল ৩৯ বছর।’

ঘরের ভেতরেও বিপদ রয়েছে:

সম্প্রতি চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা ত্বকের হাইপারপিগমেন্টেশন বা ত্বকে বয়সের ছাপ ও বাদামী দাগের আরেকটি কারণ শনাক্ত করেছেন। নিউ ইয়র্কের ত্বক বিশেষজ্ঞ ডেন্ডি এনজেলম্যান বলেন, ‘গবেষণার উপাত্ত সাজেস্ট করছে যে শুধু সূর্যের উজ্জ্বল ইউভি রশ্মিই নয়, কম্পিউটার স্ক্রিন বা ল্যাম্প থেকে নির্গত আবদ্ধ স্থানের আলো অথবা অবলোহিত আলোও রঞ্জক কোষকে উদ্দীপ্ত করতে পারে।’ তাই শীতে আপনি প্রায়সময় ইনডোরে কাটালেও আপনার ত্বককে ঘরের বাতি, অফিসের বাতি, কম্পিউটার, ল্যাপটপ, টেলিভিশন ও ফোন স্ক্রিনের আলো থেকে রক্ষা করতে সানস্ক্রিন ব্যবহার করা প্রয়োজন।’

শীতকালীন খেলাধুলা ক্ষতিকর রশ্মির সংস্পর্শে আনে:

আমেরিকার স্কিন কেয়ার ফাউন্ডেশনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সমুদ্রপৃষ্ঠের ওপর প্রতি হাজার ফুটে পাঁচ শতাংশ করে ইউভি বিকিরণ বৃদ্ধি পায়।এর মানে হলো- আপনি যত বেশি ওপরে উঠবেন, ক্ষতিকর ইউভি রশ্মির সংস্পর্শে তত বেশি আসবেন। যারা শীতকালে বেশি খেলাধুলা করেন তারা স্কিন ক্যানসার ও সানবার্নের বাড়তি ঝুঁকিতে থাকেন, বিশেষ করে ওপরে উঠতে হয় এমন খেলাধুলার ক্ষেত্রে একথা বেশি প্রযোজ্য। তাই শীতে আপনার খেলাধুলার শিডিউলে ব্যস্ততা থাকলে ত্বকের সুরক্ষায় সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে ভুলবেন না। এটা খেয়াল রাখতে হবে যে আপনার সানস্ক্রিনে ন্যূনতম ৩০ এসপিএফ রয়েছে। বরফ রয়েছে এমন দেশে প্রবাস জীবন কাটালে বা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে গেলে সানস্ক্রিন ব্যবহারে বিশেষ মনোযোগ দিতে হবে, কারণ বরফে প্রতিফলিত হয়ে সূর্যালোক আরো তীব্র হয়ে ওঠে, এর ফলে ত্বক পুড়ে যাওয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়।

শীতের প্রতিকূল পরিবেশে সানস্ক্রিন দ্রুত মুছে যায়:

গরমের দিনে সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে গেলে অথবা অন্য কাজে সূর্যের নিচে কাটালে শরীর থেকে ঘাম বের হয়ে সানস্ক্রিন দূর হয়ে যায়। যারা সানস্ক্রিন ব্যবহার করেন তারা সহজে এ বিষয়টা অনুধাবন করেন এবং পুনরায় সানস্ক্রিন লাগাতে তৎপর হন। কিন্তু তাদের অনেকেই এটা অনুধাবন করেন না যে, শীতের শত্রুভাবাপন্ন পরিবেশে সানস্ক্রিন আরো দ্রুত নিঃশেষ হয়ে যায়। আমেরিকার স্কিন ক্যানসার ফাউন্ডেশনের মতে, বরফ ও কড়া বাতাস ত্বকে ব্যবহৃত সানস্ক্রিনের কার্যকারিতা কমিয়ে ফেলে ও দ্রুত নিঃশেষিত করে। তাই শীতে শুধু সকালে সানস্ক্রিন প্রয়োগ করে এটা ভাবতে পারেন না যে সারাদিন সুরক্ষিত থাকবেন। একারণে ত্বক বিশেষজ্ঞরা এ মৌসুমে দু’ঘন্টা পরপর ত্বকে সানস্ক্রিন মাখতে পরামর্শ দিচ্ছেন।

শীতেও স্কিন ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়ে:

সিগারেট যেমন বছরের যেকোনো সময় ফুসফুস ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়ায়, ঠিক তেমনি সূর্যের রশ্মিও বছরের যেকোনো সময় স্কিন ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়াতে পারে। ক্যানসার শীত, বর্ষা, গ্রীষ্ম কিংবা মেঘাচ্ছন্ন আকাশ দেখে না, প্রত্যেক মৌসুমেই এ মারাত্মক রোগের ঝুঁকি বাড়তে পারে। শীতে সূর্যের দেখা কম মিলে বলে এটা ভাবার অবকাশ নেই যে আপনি এসময় ক্যানসারের ঝুঁকি থেকে মুক্ত। প্রকৃতপক্ষে ত্বককে অরক্ষিত রাখলে ঠান্ডা মৌসুমেও স্কিন ক্যানসারের বাড়তি ঝুঁকি রয়েছে। একারণে ত্বকের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে আপনার স্কিন কেয়ার রুটিনে শীতেও সানস্ক্রিনের ব্যবহার রাখুন। আল্ট্রাভায়োলেট (ইউভি) রেডিয়েশন বা অতিবেগুনি রশ্মির বিকিরণে ফ্রি রেডিক্যাল তৈরি হয়, ডিএনএ ক্ষতিগ্রস্ত হয় ও ডিএনএ-তে অস্বাভাবিক পরিবর্তন আসে।ডিএনএ বারবার ক্ষতিগ্রস্ত হলে স্কিন ক্যানসার সৃষ্টি হয় এবং ৯০ শতাংশ নন-মেলানোমা স্কিন ক্যানসারের সঙ্গে ইউভি রশ্মির যোগসূত্র আবিষ্কৃত হয়েছে।

পড়ুন : সুস্থ ত্বকের ১১ গোপন রহস্য

 

ঢাকা/ফিরোজ

     
 
রাইজিংবিডি স্পেশাল ভিডিও