ঢাকা, বুধবার, ২৪ আষাঢ় ১৪২৭, ০৮ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

উপ-নির্বাচনের সময় বাড়াতে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করবেন সিইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৫-২০ ৮:৫৭:৪৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৫-২১ ৯:১৬:১৯ পিএম

শূন্য আসনের উপ-নির্বাচনের সময় বৃদ্ধির বিষয়ে পরামর্শ করতে রাষ্ট্রপতির কাছে যাবেন বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা।

বুধবার (২০ মে) জুম মিটিংয়ে মাঠ পর্যায়ে নির্বাচন কর্মকর্তাদের সঙ্গে যুক্ত থেকে অনলাইন প্রশিক্ষণের উদ্বোধনকালে সিইসি এই কথা বলেন।

নূরুল হুদা বলেন, নির্বাচনী সংবিধান অনুযায়ী জাতীয় সংসদের শূন্য আসনে উপ-নির্বাচন ৯০ দিনের মধ্যে করার নিয়ম রয়েছে।  কিন্তু  করোনাভাইরাসের মধ্যে নির্বাচন করা সম্ভব না হলে সংবিধানিক ক্ষমতাবলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে ভোট করতে পারেন।  আর যদি এই সময়ের মধ্যেও নির্বাচন অনুষ্ঠানের সম্ভব না হয় তাহলে নির্বাচন কমিশন রাষ্ট্রপতির সঙ্গে পরামর্শ করে সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন করতে পারে।

রাষ্ট্রপতির কাছে কবে যাবেন সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা নির্বাচন কমিশন বসে এই বিষয়ে আলোচলা করবো। আলোচনার মাধ্যমে ঠিক করবো। আমরা রাষ্ট্রপতির কাছে যাবো সম্ভবত ঈদের পর।

সিইসি বলেন, ‘স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনুষ্ঠানের সময় নির্ধারণ করে সরকারের স্থানীয় সরকার বিভাগ।  তারা যেভাবে বলবে নির্বাচন কমিশন সেভাবে নির্বাচন করবে।

উল্লেখ্য, গত ২৯ মার্চ যশোর-৬ এবং বগুড়া-১ আসনের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা থাকলেও করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে ভোট গ্রহণের সপ্তাহখানেক আগে তা স্থগিত করা হয়।  আসন দুটির মধ্যে বগুড়া-১ শূন্য হয় ১৮ জানুয়ারি এবং যশোর-৬ শূন্য হয় ২১ জানুয়ারি।  ইতোমধ্যে আসন দুটির উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠানের ৯০ দিন পার হয়েছে।  সংবিধান প্রদত্ত সিইসির হাতে থাকা পরবর্তী ৯০ দিন পার হবে যথাক্রমে ১৫ ও ১৮ জুলাই। এর মধ্যে ভোট করতে না পারলে রাষ্ট্রপতির মাধ্যমে সুপ্রিম কোর্টে সময়ের আবেদন করতে হবে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, দেশে মহামারি করোনাভাইরাসের মধ্যেও ইসির মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা কর্মচারীরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।  তাই যখনই কেউ কোনো অসুবিয় পড়বেন, ইসি সচিবালয়কে স্মরণে রাখবেন।  সাহায্য সহযোগিতা যখন লাগবে আমরা আপনাদের পাশে আছি।

তিনি বলেন, এক একটা পরিবেশ-পরিস্থিতি যখন আসে আমাদেরকে নিবেদিত হতে হয়।  সেই নিবেদিত হওয়ার সময় এটা। এই সময়টাকে আপনারা কাজে লাগিয়েছেন। দেশের স্বার্থে জাতির স্বার্থে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন, তাদের আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ দিচ্ছি।

নুরুল হুদা বলেন, ‘ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন ভিডিও কনফারেন্স করে।  আমরা তেমনিভাবে নিজেদের কাজকর্ম গুছিয়ে নেওয়ার সুযোগ পেয়েছি। তবে আপনারা সতর্ক থাকবেন, কাজে থাকবেন, নিরবচ্ছিন্ন থাকবেন, দেশ এবং জাতির জন্য যেখানে যে অবস্থায় আছেন সেখান থেকেই সেবা করবেন।


হাসিবুল/সাইফ