ঢাকা, মঙ্গলবার, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৩ জুলাই ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

অ্যাসপিরিন যখন বিপজ্জনক (শেষ পর্ব)

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৫-২৬ ১০:০৯:৪০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৫-২৬ ১০:১১:৫৮ পিএম
অ্যাসপিরিন যখন বিপজ্জনক (শেষ পর্ব)
প্রতীকী ছবি
Voice Control HD Smart LED

এস এম গল্প ইকবাল : আপনার মনে হতে পারে যে অ্যাসপিরিন সেবনে কোনো ক্ষতি হবে না, কিন্তু কিছু দশা ও কিছু পরিস্থিতির ক্ষেত্রে অ্যাসপিরিন সেবন বিপজ্জনক হতে পারে, এমনকি জরুরি বিভাগে যাওয়ার প্রয়োজনও হতে পারে। তাই কোন কোন ক্ষেত্রে এই ওভার-দ্য-কাউন্টার ওষুধ (যা কিনতে ডাক্তারি প্রেসক্রিপশন লাগে না) গ্রহণ করা যাবে না তা জেনে রাখা ভালো। কখন অ্যাসপিরিন বিপজ্জনক হতে পারে তা নিয়ে দুই পর্বের প্রতিবেদনের আজ থাকছে শেষ পর্ব।

* অ্যাসপিরিন সেবনে কতটুকু উপকার হয়?
আপনি জানেন যে অ্যাসপিরিন ব্যথা উপশম করতে পারে, অনেকে হয়তো শুনেছেন যে এই ওভার-দ্য-কাউন্টার ওষুধ হৃদরোগ প্রতিরোধ করতে পারে। কিন্তু গবেষণায় পাওয়া গেছে যে, খুব সামান্য লোকই অ্যাসপিরিন থেকে হার্টের উপকার পেয়ে থাকেন। সাউথ ফ্লোরিডার কার্ডিওলজিস্ট অ্যাডাম স্প্ল্যাভার বলেন, ‘অনেক বছর আগে চিকিৎসকরা রোগীদেরকে অ্যাসপিরিন সেবনের পরামর্শ দিতেন। আপনি হয়তো এ কথাটি শুনেছেন যে প্রতিদিন একটি অ্যাসপিরিন চিকিৎসক থেকে দূরে রাখে। কিন্তু আপনার জেনে রাখা ভালো যে খুব নগণ্য ক্ষেত্রে এটি সত্য হতে পারে, কিন্তু কিছু কিছু ক্ষেত্রে অ্যাসপিরিন আপনাকে জরুরি বিভাগে পাঠাতে পারে।’

* ওভার-দ্য-কাউন্টার ওষুধ যেখান থেকে কিনবেন
যেহেতু আপনি ওভার-দ্য-কাউন্টার ওষুধ হিসেবে অ্যাসপিরিন কিনতে পারেন, তাই আপনি সম্ভবত মনে করেন যে এটি নিরাপদ। কিন্তু আসলে কি তাই? আপনি কোত্থেকে এ ওষুধ কিনছেন তার ওপর ভিত্তি করে আপনার বিপদ হতে পারে, অন্যান্য ওভার-দ্য-কাউন্টার ওষুধের ক্ষেত্রেও এ কথা প্রযোজ্য। ভুলেও রাস্তাঘাট থেকে এ ধরনের ওষুধ কিনবেন না। স্পোর্টস নিউরোলজিস্ট এবং ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলেসে অবস্থিত সিডার্স-সিনাই কেরলান-জোব ইনস্টিটিউটের অন্তর্গত সেন্টার ফর স্পোর্টস নিউরোলজি অ্যান্ড পেইন মেডিসিনের ডিরেক্টর ভারনন উইলিয়ামস বলেন, ‘আমাদের সকলের জীবনে কোনো না কোনো সময় পিঠ ব্যথা, মাথাব্যথা অথবা হাঁটু ব্যথা হয়ে থাকে এবং বেশিরভাগ মানুষই ব্যথা উপশম করতে ওভার-দ্য-কাউন্টার ব্যথানাশক সেবন করে থাকেন। তারা মনে করেন না যে এতে কোনো ক্ষতি হবে। হ্যাঁ আমরা চিকিৎসকেরাও তাই মনে করি, যদি আপনি ওষুধের দোকান থেকে অনুমোদিত জনপ্রিয় ব্র্যান্ডের ওষুধ কিনেন।’ যত্রতত্র থেকে অখ্যাত ওষুধ সেবনে আপনার স্বাস্থ্য বা জীবন ঝুঁকির মধ্যে পড়তে পারে।

* অ্যাসপিরিন যখন বিপজ্জনক: যদি লেবেল না পড়েন
যদিও প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যাসপিরিন কেনা যায়, কিন্তু এটি সেবনের পূর্বে নির্দেশিকা ভালোভাবে পড়া গুরুত্বপূর্ণ। আমেরিকান গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (এজিএ) পরিচালিত একটি জরিপ অনুসারে, লোকজনের ওভার-দ্য-কাউন্টার ওষুধ সম্পর্কে যতটা সতর্ক হওয়া উচিত ততটুকু হন না। ডা. উইলিয়ামস বলেন, ‘দীর্ঘস্থায়ী ব্যথায় ভোগা এক-চতুর্থাংশ লোক নির্দেশিকায় উল্লেখিত ডোজের চেয়ে বেশি মাত্রায় ওটিসি ব্যথানাশক সেবন করে থাকেন, কারণ তারা বিশ্বাস করেন যে এতে দ্রুত ব্যথা উপশম হয়। এ ভুল ওষুধের ওভারডোজ জনিত মারাত্মক স্বাস্থ্য দশা সৃষ্টি করতে পারে, যেমন- লিভার ড্যামেজ, আলসার এবং এমনকি মৃত্যুও।’

* অ্যাসপিরিন যখন বিপজ্জনক: যদি অ্যালার্জি থাকে
অ্যাসপিরিন সেবনের পর কেমন অনুভব করছেন তাতে মনোযোগ দিন, কারণ আমাদের অনেকেই ছোটখাট অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়াকে গুরুত্ব দেন না। এসব প্রতিক্রিয়া কেবলমাত্র অ্যাসপিরিনের ক্ষেত্রেই সীমাবদ্ধ নয়। হোয়াগ মেডিক্যাল গ্রুপের ফিজিশিয়ান এলিজাবেথ ইয়ান্নি বলেন, ‘আমি অনেক রোগী দেখেছি যাদের প্রদাহ-বিরোধী ওষুধ (যেমন- অ্যাডভিল, মট্রিন ও অন্যান্য অথবা এনএসএআইডি’র পুরো ফ্যামিলি) থেকে অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।’ যেসব লোকের এ অ্যালার্জি থাকে তাদের বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দিতে পারে, যেমন- হাইভস বা আমবাত, গলাবন্ধ অনুভূতি, চুলকানি ও অন্যান্য।

* অ্যাসপিরিন যখন বিপজ্জনক: যদি বয়স ১৮ বছরের নিচে হয়
শিশুদের ক্ষেত্রে অ্যাসপিরিনের ব্যবহার নিরাপদ নয়, তাই তুলনামূলক ভালো অপশনের জন্য শিশু বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলুন। নিউ ইয়র্কের ব্রুকলিনে অবস্থিত ব্রুকডেল হসপিটাল মেডিক্যাল সেন্টারের অন্তর্গত ইন্টারনাল মেডিসিন রেসিডেন্সির অ্যাসোশিয়েট প্রোগ্রাম ডিরেক্টর ও গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজিস্ট নিকেত সোনপাল বলেন, ‘শিশু-কিশোরদের অ্যাসপিরিন সেবন করানো উচিত নয়, বিশেষ করে ইনফ্লুয়েঞ্জা বা ভেরিসেলা আছে এমন শিশুদের, কারণ শিশুদের অ্যাসপিরিন সেবন ও রিয়ে’স সিন্ড্রোমের মধ্যে যোগসূত্র পাওয়া গেছে।’ রিয়ে'স সিন্ড্রোম মস্তিষ্কের ভেতর ফোলা সৃষ্টি করে এবং লিভার ড্যামেজ করে। এ প্রসঙ্গে ডা. সোনপাল বলে, ‘এটি হলো দ্রুত অগ্রগতির এনসেফালোপ্যাথি। উপসর্গের মধ্যে বমি, ব্যক্তিত্বে পরিবর্তন, কনফিউশন, খিঁচুনি ও অচেতন হয়ে যাওয়া অন্তর্ভুক্ত।’

* অ্যাসপিরিন যখন বিপজ্জনক: যদি ডাক্তারকে জানাতে ভুলে যান
যেহেতু অ্যাসপিরিন আপনার প্রেসক্রিপশন ওষুধ বা সাপ্লিমেন্টের সঙ্গে ইন্টার‍্যাকশন করতে পারে, তাই এটি সেবনের পূর্বে আপনার ডাক্তারকে জানাতে ভুলবেন না। ডা. উইলিয়ামস বলেন, ‘দীর্ঘস্থায়ী ব্যথায় ভোগা কিছু রোগী ব্যথা নিরাময়ের জন্য ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়াই ওটিসি ব্যথানাশক ওষুধ গ্রহণ করে থাকেন। আমার অনেক রোগীকে এ ভুলটি করতে দেখেছি। তারা মনে করেন যে নিজেরাই এ সমস্যা হ্যান্ডল করতে পারবেন।’ কিন্তু এ ধরনের ভুল মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে। ডা. উইলিয়ামস সকল ওভার-দ্য-কাউন্টার ওষুধের ব্যাপারে ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলতে পরামর্শ দিচ্ছেন।

* অ্যাসপিরিন যখন বিপজ্জনক: যদি বেশি সেবন করেন
অ্যাসপিরিনের ক্ষেত্রে কমই বেশি কার্যকর। ডা. উইলিয়ামস সতর্ক করেন, ‘নিজে নিজে ওষুধ সেবনকে হালকাভাবে নেয়া উচিত নয়। আপনি যে অসুস্থতার কারণেই ওটিসি ওষুধ সেবন করেন না কেন, দীর্ঘমেয়াদে ব্যবহার করা যাবে কিনা জানতে ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলুন। অনেকেই অ্যাসপিরিনের ওভারডোজের উপসর্গ লক্ষ্য করতে ব্যর্থ হন, তাই সুপারিশকৃত ডোজের বেশি মাত্রায় অ্যাসপিরিন সেবন করবেন না।

* অ্যাসপিরিন যখন বিপজ্জনক: যদি ঠান্ডার ওষুধ সেবন করেন
এজিএ’র জরিপ অনুসারে, যারা নিয়মিত অ্যাসপিরিনের মতো ওভার-দ্য-কাউন্টার ব্যথানাশক সেবন করেন, তাদের ৭৯ শতাংশই ঠান্ডা ও ফ্লু নিরাময়ের জন্য ওভার-দ্য-কাউন্টার ওষুধ ব্যবহার করেন। কিন্তু এটি উল্লেখযোগ্যভাবে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি করে, বিশেষ করে হৃদরোগ বা উচ্চ রক্তচাপ বা ডায়াবেটিস বা অ্যাজমা বা কিডনি সমস্যা বা লিভার সমস্যা আছে এমন রোগীদের ক্ষেত্রে, বলেন ডা. উইলিয়ামস।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট

পড়ুন :
* অ্যাসপিরিন যখন বিপজ্জনক (প্রথম পর্ব)
* ব্যথা কমাতে অ্যাসপিরিন নাকি ইবুপ্রোফেন, কোনটি খাবেন?

 



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৬ মে ২০১৯/ফিরোজ

Walton AC
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       

Walton AC
Marcel Fridge