ঢাকা, বুধবার, ২৮ কার্তিক ১৪২৬, ১৩ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

মূত্রতন্ত্রে ইনফেকশন প্রতিরোধের ঘরোয়া উপায়

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১০-২৪ ২:০৩:৩৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১০-২৪ ২:০৩:৩৪ পিএম
প্রতীকী ছবি

শরীরের বাইরের ব্যাকটেরিয়া মূত্রতন্ত্রে প্রবেশ করে কিডনি, মূত্রাশয় ও মূত্রনালিতে ছড়িয়ে পড়াকে মূত্রতন্ত্রের ইনফেকশন বলে। যে কোনো বয়সে এই ইনফেকশন হতে পারে, কিন্তু সবচেয়ে বেশি হয় নারীদের। প্রায়ক্ষেত্রে  ইনফেকশনে মূত্রত্যাগে যন্ত্রণা হয় এবং সেইসঙ্গে অন্যান্য উপসর্গ দেখা দিতে পারে- ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকের প্রতিবেদন অনুসারে জানুন প্রতিরোধের ঘরোয়া উপায়।

সহবাসের পর করণীয়: এটি মূত্রতন্ত্রের ইনফেকশন প্রতিরোধের অন্যতম সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ ঘরোয়া সমাধান। যৌনমিলনের পরপরই মূত্রত্যাগ করলে মূত্রনালিকে ঢুকে পড়া ব্যাকটেরিয়া দূর হয়ে যেতে পারে। মূত্রত্যাগের পর সামনে থেকে পেছনে পরিষ্কার করুন। ইনফেকশন এড়ানোর অন্যতম আরেকটি পদক্ষেপ হচ্ছে, যখনই বেগ আসে তখনই কাজটি সেরে নেয়া। বলেন ক্যালিফোর্নিয়ার অন্তর্গত সান্টা মনিকার স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও স্ত্রীরোগ চিকিৎসক শেরি রস। ডা. রস আরো বলেন, একটি প্রয়োজনীয় নিয়ম হচ্ছে, প্রতি দুই থেকে তিন ঘণ্টা পরপর মূত্রত্যাগ করা। দীর্ঘসময় মূত্র ধরে রাখলে শরীরে ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বেড়ে যেতে পারে। এছাড়া কড়া কেমিক্যালের পারফিউম, সুবাসিত টয়লেট পেপার ও ডিওডোরেন্ট এড়িয়ে চলুন। কারণ এগুলো ভ্যাজাইনার স্বাভাবিক পিএইচ ব্যালেন্স ব্যাহত করে ও ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া সৃষ্টি করে ইনফেকশনের ঝুঁকি বৃদ্ধি করে।

হাইড্রেটেড থাকুন : পর্যাপ্ত পানি পান শরীর থেকে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া বের করে দিতে পারে। ইনফেকশন প্রতিরোধ ও প্রতিকারে পানিশূন্যতা এড়িয়ে চলুন। হাইড্রেশন কিডনি ও মূত্রাশয় থেকেও ব্যাকটেরিয়া দূরীকরণে সাহায্য করে। দিনে কতটুকু পানি পান করা উচিত তা নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন মত রয়েছে। প্রচলিত পরামর্শ হলো, দিনে ৮ গ্লাস পানি পানের লক্ষ্য নির্ধারণ করা উচিত। কিন্তু মানুষভেদে এর চেয়ে বেশি বা কমও প্রয়োজন হতে পারে। বারবার ইনফেকশন হলে প্রচুর পানি পানে উপকার পেতে পারেন, এমন ধারণা দিচ্ছে জেএএমএ ইন্টারনাল মেডিসিনে প্রকাশিত গবেষণা। এই গবেষণায় পাওয়া গেছে, যেসব নারী প্রতিদিন অতিরিক্ত ১.৫ লিটার (প্রায় ৬ গ্লাস) পানি পান করেছিল তাদের মূত্রতন্ত্রের ইনফেকশন হওয়ার হার সেই গ্রুপের নারীদের চেয়ে ৫০ শতাংশ কম ছিল যারা অতিরিক্ত পানি পান করেননি।

পর্যাপ্ত ভিটামিন সি: ব্যাকটেরিয়ার অতি বিস্তার প্রতিরোধের অন্যতম উপায় যথেষ্ট পরিমাণে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া অথবা প্রয়োজনে ভিটামিন সি সাপ্লিমেন্ট সেবন করা। তবে অধিক ভিটামিন সি গ্রহণ করবেন না। বয়সি নারীদের প্রতিদিন ন্যূনতম ৭৫ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি খেতে পরামর্শ দেয়া হয়। আপনার জন্য ভিটামিন সি এর সঠিক পরিমাণ নির্ধারণ করতে চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলুন।

যৌনমিলনের স্বাস্থ্যবিধি: অনাকাঙ্ক্ষিত ব্যাকটেরিয়া আদান-প্রদানের ঝুঁকি এড়াতে যৌনমিলনের পূর্বে স্বামী-স্ত্রী উভয়কেই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন হতে হবে। ডা. রস অত্যধিক লালা, স্পার্মিসাইডস ও লুব্রিক্যান্টস এড়িয়ে যেতে পরামর্শ দিচ্ছেন। সহবাসের সময় কোনো কিছুকে যৌনাঙ্গের সংস্পর্শে আনতে চাইলে নিশ্চিত হোন, তা যেন পরিষ্কার অথবা জীবাণুমুক্ত থাকে।

ভেজা কাপড়: ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া বংশবিস্তারের জন্য আদর্শ স্থান হচ্ছে উষ্ণ, স্যাঁতসেতে পরিবেশ। ভেজা পোশাক অথবা ঘর্মাকৃত ব্যায়ামের পোশাক যত দ্রুত সম্ভব খুলে ফেলুন। আপনার ঘনঘন মূত্রতন্ত্রের ইনফেকশন হলে কটনের ঢিলা অন্তর্বাস পরুন। কারণ এই পোশাকে অন্যান্য ম্যাটারিয়ালের চেয়ে বাতাস বেশি চলাচল করতে পারে। ফলে আপনার গোপনাঙ্গ কম ঘামবে ও ব্যাকটেরিয়ার বংশবৃদ্ধির সুযোগ কমে পাবে। 

কখন চিকিৎসকের কাছে যাবেন?

ঘরোয়া চিকিৎসায় যে সবসময় মূত্রতন্ত্রের ইনফেকশন প্রতিরোধ ও প্রতিকার হবে এমন নয়, বলেন শিকাগোতে অবস্থিত নর্থওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটি’স ফেইনবার্গ স্কুল অব মেডিসিনের অন্তর্গত মেডিক্যাল এডুকেশন অ্যান্ড অবস্টেট্রিকস অ্যান্ড গাইনিকোলজির ইউরোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক স্টেফানি জে. কিয়েলব। তিনি যোগ করেন, ‘এরপরও ইনফেকশন পুনরায় ফিরে এলে অথবা নিরাময় না হলে চিকিৎসকের কাছে গিয়ে প্রকৃত কারণ শনাক্ত করতে হবে। এজন্য মূত্র কালচার ও টেস্ট করতে হবে। আপনার অ্যান্টিবায়োটিক প্রয়োজন হতে পারে, কিন্তু যেসব নারীর মাসিক স্থায়ীভাবে বন্ধ হয়ে গেছে তাদের ক্ষেত্রে সাপ্লিমেন্টাল ভ্যাজাইনাল ইস্ট্রোজেন পুনরাবৃত্তিমূলক মূত্রতন্ত্রের ইনফেকশনের ঝুঁকি নিচে নামাতে পারে। মেনোপজের পর ইস্ট্রোজেনের মাত্রা কমে গিয়ে ভ্যাজাইনার ব্যাকটেরিয়ার ভারসাম্য বিঘ্নিত হয়ে পড়ে। কিন্তু সাপ্লিমেন্টাল ভ্যাজাইনাল সাপ্লিমেন্ট এই ভারসাম্য পুনরুদ্ধার করে মূত্রতন্ত্রের ইনফেকশনের ঝুঁকি কমাতে পারে।’

পড়ুন : * মূত্রনালীর সংক্রমণের ৭ উপসর্গ

* পুরুষের ইউরিনারি ইনকনটিনেন্স সমস্যা

 

ঢাকা/ফিরোজ/তারা

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন