ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

শ্রীলঙ্কায় সব ছাপিয়ে নিরাপত্তা এবং বৃষ্টি

উদয় হাকিম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৭-২৬ ২:১৭:২৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৮-০১ ৮:৫৪:৫১ এএম
ছবি : মিলটন আহমেদ

উদয় হাকিম কলম্বো, শ্রীলঙ্কা থেকে : বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট সিরিজে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে শ্রীলঙ্কা সরকার। খেলোয়াড়, তাদের আবাসস্থল, খেলার মাঠ এবং যাতায়াত সর্বত্র কঠোর নিরাপত্তা বলয় তৈরি করা হয়েছে। এ্যাক্রিডিটেশন কার্ড ছাড়া কেউ মাঠে প্রবেশ করতে পারছেন না। এমনকি প্র্যাকটিস ম্যাচে সাংবাদিকদের প্রবেশে ছিলো কড়াকড়ি। স্থানীয় সময় দুপুর আড়াইটায় ম্যাচ শুরু হবে কলম্বো প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে। দর্শকদের প্রবেশেও এবার নেয়া হচ্ছে বাড়তি নিরাপত্তা। আর তাই সব ছাপিয়ে এখন পর্যন্ত নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়েই সবচেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে।

এই সিরিজে প্রধানত নিরাপত্তা ইস্যু নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলো বাংলাদেশ। যে কারণে সিরিজ হবে কি না তা নিয়ে অনিশ্চয়তা ছিলো। ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ চলাকালে এ নিয়ে বিস্তর আলোচনা হচ্ছিলো। শ্রীলঙ্কায় বোমা হামলা এবং জননিরাপত্তা হুমকির মুখে থাকার পেক্ষাপটে ওই আশঙ্কা দেখা দিয়েছিলো। বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট কূটনীতির সফল আলোচনায় অবশেষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজটি হচ্ছে। এতে করে শ্রীলঙ্কার লাভ হচ্ছে দুদিক দিয়ে। এই সিরিজ সফলভাবে শেষ করতে পারলে অন্তত নিরাপত্তা ইস্যুতে নিউজিল্যান্ড না এসে পারবে না। দ্বিতীয় সবার কাছে বার্তা গেলো শ্রীলঙ্কা এখন নিরাপদ। তবে বিপদের সময় পাশে দাঁড়িয়ে প্রকৃত বন্ধুর মতো এগিয়ে আসায় শ্রীলঙ্কার অবশ্যই কৃতজ্ঞ থাকা উচিত বাংলাদেশের প্রতি।

 

শ্রীলঙ্কায় গত ২১ এপ্রিল ইস্টার সানডেতে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় আড়াইশরও বেশি লোকের প্রাণহানী ঘটে। কিছু মুসলিম জঙ্গী ওই হামলার সঙ্গে জড়িত বলে সন্দেহ করা হচ্ছিলো। এরপর থেকে নানা সময় বিশেষ করে মুসলিমদের উপর হামলা হয়েছে। এখনো বিচ্ছিন্নভাবে হামলার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দল শ্রীলঙ্কা এসেছে ২০ জুলাই। তখন সেনা নিরাপত্তায় তাদের হোটেলে নিয়ে আসা হয়েছে। ২৩ জুলাই ছিলো প্র্যাকটিস ম্যাচ। তখনো ছিলো কঠোর নিরাপত্তা। বাংলাদেশ থেকে আসা যেসব সাংবাদিক তখনো এ্যাক্রিডিটেশন কার্ড পাননি তারা প্রবেশ করতে পারেন নি। তবে অধিনায়ক তামিম এরইমধ্যে নিরাপত্তার প্রসংশা করেছেন। যেটি শ্রীলঙ্কান মিডিয়াতে গত কয়েকদিন ধরে বেশ প্রচার পেয়েছে।

 

 

বিদায়ী ম্যাচে মালিঙ্গার ছবি সম্বলিত বিশাল বোর্ড

 

তবে টাইগার ভক্তদের কাছে সবকিছু ছাপিয়ে চাই জয়। সাকিব এবং লিটন না থাকায় দল কিছুটা দুর্বল হয়েছে বলে মনে করছেন অনেকেই। অবশ্য তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচ জিতলেই সে ভয় দূর হবে। আশার কথা হচ্ছে বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে খেলতে না পেরে মুখিয়ে আছে বাংলাদেশ। বর্তমানে শ্রীলঙ্কার ফর্মও খুব একটা ভালো নেই। যদিও নিজেদের মাঠে লাসিথ মালিঙ্গার বিদায়ী ম্যাচে জিততে আপ্রান চেষ্টা করবে শ্রীলঙ্কা।

বাংলাদেশ দল শ্রীলঙ্কা আসার আগে ফ্লাড লাইটে প্র্যাকটিস করেছে মিরপুরে। মূল ম্যাচ ডে নাইট হবে বলে এখানে এসেও আলোর নিচে অনুশীলন করেছে দল। অন্যদিকে প্র্যাকটিস ম্যাচে ৫ উইকেটের সহজ জয় আরো আত্মবিশ্বাসী করেছে টাইগারদের।

একটা আশঙ্কা অবশ্য থেকেই যাচ্ছে। বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে কিছুটা। তা অবশ্য ম্যাচ ভাসিয়ে দেয়ার মতো বা পরিত্যক্ত হওয়ার মতো নয়। সকালেও কয়েক পশলা বৃষ্টি হয়ে গেছে। যদিও আকাশ এখন পরিষ্কার। ঝলমলে রোদ খেলা করছে। প্রথম ম্যাচে জয়ই পারে বাংলাদেশের সব আশঙ্কা দূর করতে।


রাইজিংবিডি/কলম্বো/২৬ জুলাই ২০১৯/উদয় হাকিম

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন