ঢাকা, শনিবার, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২৩ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

ওয়ালটনের ফ্রিজ কিনে ফেনীর গৃহিনী মিলিয়নিয়ার

রেজাউল করিম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৮-২৪ ৫:২০:৪০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৮-২৪ ৬:৫২:৫৮ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম: ওয়ালটনের ফ্রিজ কিনে এক মিলিয়ন বা ১০ লাখ টাকা পেলেন ফেনীর গৃহিনী লায়লা বেগম। ঈদুল আযহা উপলক্ষ্যে ফ্রিজ ক্রেতাদের জন্য ‘মিলিয়নিয়ার ক্যাম্পেইন’ চালিয়েছিল বাংলাদেশি মাল্টিন্যাশনাল ব্রান্ড ওয়ালটন। এর আওতায় ফ্রিজ কিনে মিলিয়নিয়ার হলেন তিনি।

লায়লা বেগম ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার পশ্চিম পাঠান নগর এলাকার বাসীন্দা। গত ২১ জুলাই ফেনীর একাডেমি রোডে ওয়ালটনের নিজস্ব প্লাজা শোরুম থেকে ফ্রিজটি কেনেন তিনি। মাত্র ২৫ হাজার ৩শ' টাকায় ১১ সিএফটি’র একটি ফ্রিজ কিনেই লাখপতি হলেন লায়লা বেগম।

ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-ফোর এর আওতায় ফ্রিজ ক্রেতাদের এ সুযোগ দিয়েছিল ওয়ালটন। যে কোনো মডেলের ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে রেজিস্ট্রেশন করলে প্রতিদিনই ১০ লাখ টাকা পাওয়ার সুযোগ ছিল। এছাড়া ছিল ১ লাখ টাকা ক্যাশব্যাক, টিভি, ফ্রিজ, এসিসহ অসংখ্য পণ্য ফ্রি কিংবা নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার। এ সুবিধা অব্যাহত ছিল ঈদুল আযহা পর্যন্ত।

সেই ক্যাম্পেইনের আওতায় ফ্রিজটি কিনে মোবাইল ফোনে ম্যাসেজের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করেন লায়লা বেগম। তার কিছুক্ষণ পরেই ওয়ালটনের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা পাওয়ার ফিরতি ম্যাসেজ পান তিনি। জীবনে প্রথম একসঙ্গে এত টাকা পাওয়ার আনন্দে আত্মহারা হয়ে পড়েন লায়লা বেগম।

শনিবার (২৪ আগস্ট) ওয়ালটন প্লাজা একাডেমি শাখার সামনে জাঁকজমকপূর্ণ এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে লায়লা বেগমের হাতে ১০ লাখ টাকার চেক তুলে দেওয়া হয়।

সেসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন গ্রুপের এরিয়া ম্যানেজার সোহেল রানা, ক্রেডিট মনিটরিং ফাহিম রেজা, ওয়ালটন প্লাজা একাডেমি রোড শাখার ম্যানেজার সাজেদুল ইসলাম। ফেনী এসএসকে রোড শাখার ম্যানেজার ইমরুল কায়েস, চৌমুহনী শাখার ম্যানেজার মো. শাহজাহান, মাইজদি শাখার ম্যানেজার মো. রফিকুল ইসলাম, সোনাইমুড়ি শাখার ম্যানেজার মো. কামাল হোসেন, দাগনভূঞা প্লাজার ম্যানেজার চন্দন কুমার শীল, ছাগলনাইয়া প্লাজার ম্যানেজার মাহিদুল ইসলাম, ফেনী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) সাজেদুল পলাশ, ফেনী সরকারি কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ নুরুল ইসলাম, ফেনী পৌর সভার ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বাহার উদ্দিন বাহার, ফেনী প্রেস ক্লাবের প্রাক্তন সভাপতি মুহাম্মদ আবু তাহের ভূঁইয়া, সামাজিক সংগঠন জোনাকি জন প্রত্যাশার পরিচালক ফজলুল কাদের চৌধুরী শামীম প্রমুখ।

১০ লাখ টাকা পুরস্কার পাওয়ার প্রতিক্রিয়া জানিয়ে লায়লা বেগম বলেন, ‘ফ্রিজ কিনে ১০ লাখ টাকা পেয়েছি এটা অকল্পনীয়। যখন ম্যাসেজ পাই, বিশ্বাসই হচ্ছিল না। এমনকি প্লাজার ম্যানেজার বলার পরও ভেবেছিলাম হয়তো মজা করছেন। কেননা, জীবনে কোনদিন শুনিনি একটি ফ্রিজ কিনে কেউ এত টাকা পেয়েছে। আল্লাহ আমার ভাগ্যেই যে এটা লিখে রেখেছেন তা বুঝিনি। সেজন্য ওয়ালটনকে ধন্যবাদ।’

উল্লেখ্য, ইতোপূর্বে একই শোরুম থেকে ফ্রিজ কিনে মিলিয়নিয়ার হয়েছিলেন ফেনী সদর উপজেলার পূর্ব কাছাড় গ্রামের সামছুল হকের ছেলে মো. ইয়াছিন।


রাইজিংবিডি/চট্টগ্রাম/২৪ আগস্ট ২০১৯/রেজাউল/সনি

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন